ডিভোর্স পেতে গেলে দিতে হবে লিখিত পরীক্ষা!

0
416

বিয়েকে বলা হয় দুই আত্মার মিলন, সাত জন্মের বন্ধন এবং আরও অনেক কিছু। কিন্তু বিভিন্ন কারণবশত স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্যের সম্পর্কে চিড় ধরে এবং ফলস্বরুপ আমরা দেখতে পায় একাধিক বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা। আমাদের প্রতিবেশী দেশ চীনে গত কয়েকবছর ধরে বিবাহ-বিচ্ছেদের ঘটনা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই এই ডিভোর্সের সংখ্যায় রাশ টানতে এগিয়ে এসেছে সেখানকার স্থানীয় প্রশাসন। তারা ডিভোর্স আটকাতে এক নতুন ধরণের ক্যুইজ বা লিখিত পরীক্ষার বন্দোবস্ত করেছে। এই পরীক্ষার মাধ্যমেই যাচাই করে নেওয়া হয় স্বামী-স্ত্রী বর্তমান অবস্থায় একে অপরকে কতটা চেনেন বা তাদের একে অপরের পছন্দের বিষয়গুলি নিয়ে কতটা ওয়াকিবহাল।

আসুন যেনে নেওয়া যাক ঠিক কি পদ্ধতিতে নেওয়া হয় এই বিবাহ বিচ্ছেদের পরীক্ষা।

কি থাকে পরীক্ষার বিষয়?

এই পরীক্ষা মূলত নেওয়া হয় স্বামী-স্ত্রী একে অপরকে কতটা জানেন বা তাদের একে অপরের পছন্দের জিনিসগুলি জানেন কি না সেই বিষয়ের উপর ভিত্তি করেই। এই প্রশ্নগুলি সাধারণত হয় স্বামী বা স্ত্রী-র জন্ম তারিখ কবে, তাদের বিয়ে হয়েছিল কত তারিখে, একে অপরের পছন্দের খাবার কি সেটাও জিগেস করা হয় প্রশ্নপত্রে। এই পরীক্ষা স্বামী-স্ত্রী উভয়কেই দিতে হয়। এসব করার একটাই উদ্দেশ্য, যাতে ডিভোর্সের সংখ্যা কমানো যায়।

প্রশ্নপত্রের ধরণ কি রকম?

স্কুলে যেরকম সবাই প্রশ্নপত্র দেখে অভ্যস্ত সেরকমই প্রশ্নপত্র থাকে এখানেও। মূলত তিনটি অংশে ভাগ করা থাকে এই প্রশ্নপত্র। প্রথমে থাকে শূন্যস্থান পূরণ, তারপর থাকে ছোটো প্রশ্ন এবং সবশেষে থাকে রচনাধর্মী প্রশ্ন। দুই পৃষ্ঠায় মোট ১৫ টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয় এবং পূর্ণমান থাকে ১০০। শুন্যস্থান পূরণ হিসেবে যেমন থাকে “আপনাদের বিবাহ বার্ষিকী কবে?”, তেমনি আবার বড় প্রশ্ন হিসেবে থাকে “আপনি কি আপনার পরিবারের প্রতি সমস্ত দায়িত্ব পালন করেছেন?”

এখানে দেওয়া হল একটি নমুনা প্রশ্নপত্রঃ

প্রথম ভাগ : শূন্যস্থান পূরণ (প্রতিটি প্রশ্ন ৪ নম্বর, মোট ৪০)

1. আপনাদের বিবাহ বার্ষিকী কবে?

2. আপনার স্বামী বা স্ত্রীর জন্মদিন কবে?

3. আপনার সন্তানের জন্মদিন কবে?

4. আপনার স্বামী বা স্ত্রীর প্রিয় খাবার কি?

5. আপনার সন্তানের প্রিয় স্ন্যাকস কি?

6. আপনারা শেষ কবে যোগাযোগ করেছিলেন?

7. আপনার শ্বশুর এবং শাশুড়ির জন্মদিন কবে?

8. কতবার আপনারা একসাথে ছুটি কাটাতে বেড়াতে গেছেন?

9. আপনি কতদিন ধরে বেরিয়েছেন??

10. কিভাবে গৃহস্থালির কাজ ভাগ করে নেন আপনারা?

দ্বিতীয় ভাগ: ছোটো প্রশ্ন (প্রতিটি প্রশ্ন ১০ নম্বর, মোট ৪০)

1. দম্পতি হিসাবে আপনার সেরা স্মৃতি কি বা দম্পতি হিসাবে আপনার জীবনে ঘটেছে সবচেয়ে সৌভাগ্যবান জিনিস কি?

2. এই মূহুর্তে আপনাদের মধ্যে সবচেয়ে বড় পার্থক্য বা দ্বন্দ্ব কি?

3. আপনার পরিবারের কাছে কোন দায়িত্বগুলি আপনি পূর্ণ করেছেন এবং আপনি কি ভাল করে করেছেন মনে করেন না ভালো করে করেননি?

4. আপনার স্বামী বা স্ত্রী কি পরিবারের প্রতি তার দায়িত্ব পালন করেছে এবং আপনি কি মনে করেন, সে ঠিকঠাক করেছে না করেনি?

তৃতীয় ভাগ: রচনাধর্মী প্রশ্ন (২০ নম্বর)

আপনার বিবাহ এবং পরিবার সম্পর্কে আপনি কি মনে করেন ব্যাখ্যা করুন, আপনি বিবাহবিচ্ছেদ করতে চান কেন এবং ভবিষ্যতের জন্য আপনার পরিকল্পনা।

এটি একটি প্রশ্নপত্রের ছবিঃ

কিভাবে পাওয়া যাবে ডিভোর্স?

এই পরীক্ষা পর্ব মেটার পর দেখা হয় কে কত নম্বর পেয়েছেন। যদি কেউ ১০০ নম্বরের মধ্যে ৬০-এর বেশি পায় তাহলে সেই দম্পতিকে বলা হয় আরেকটু সময় নিয়ে ভেবে দেখার জন্য। আর ৬০ নম্বরের কম হলে তারা বিবাহ-বিচ্ছদের অনুমতি দিয়েই দেন শেষ অবধি।

উল্লেখ্য, গত বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালের মাঝামাঝি এসেই চীনে প্রায় ২ মিলিয়নের মত বিবাহ বিচ্ছেদের কেস ফাইল করা হয়। শতকরা ৭০ ভাগ ক্ষেত্রেই ডিভোর্সের আর্জি আসে মহিলাদের তরফ থেকেই। এই বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা আটকাতেই অর্থাৎ দম্পতিরা যাতে তাড়াতাড়ি ডিভোর্স না করে নেয়, চীনের কিছু কিছু শহরে এই পরীক্ষার মাধ্যমে ডিভোর্সের ব্যবস্থা করেছে সেখানকার স্থানীয় প্রশাসন।

source

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here