প’র্নহাব খুলে দিলেও লকডাউনে ভারতে বহুগুন বেড়েছে দেশিপ’র্ন ওয়েবসাইট ভিজিট

0
1702

সারা দেশজুড়ে লকডাউন পরিস্থিতি করোনা ভাইরাসের জেরে। গৃহবন্দী অবস্থাতেই দিন কাটছে দেশবাসীর। এমন অবস্থায় বাইরের বিনোদন থেকে বিরত থেকে ঘরেই দিনকাটাতে হচ্ছে সকলকে। তাই প’র্নের মধ্যেই বিনোদন খুঁজে নিচ্ছেই গৃহবন্দী মানুষজন। সম্প্রতি প’র্ন সাইটের ভিসিটর’ও নাকি কয়েকগুণ বেড়ে গেছে তার জন্য। প’র্নহাবের প্রিমিয়াম বিনামূল্যে করে দেওয়ার পরই মানুষের প’র্ন-দর্শনের পরিমাণ বেড়েছে জানাচ্ছে সাইট সংস্থা। ২২শে মার্চ প্রধানমন্ত্রীর ডাকে ছিল জনতা কার্ফু।

প’র্নহাবের পরিসংখ্যান বলছে, ঠিক তার তার দু’দিন পর ২৩% বেড়ে গিয়েছিল এর ট্রাফিক। ২৪শে মার্চ মধ্যরাত থেকে দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে লকডাউন।গত ১১ই মার্চ ইতালিতে প’র্ন দর্শকের সংখ্যা অন্যান্য দিনের তুলনায় ১৩.৮% বেড়েছিল।

প্রতীকী ছবি

সম্প্রতি প’র্নহাব নিজেদের টুইটার হ্যান্ডল থেকে একটি পোস্ট করা হয়েছে। শুধু পশ্চিমি দেশগুলোতেই নয় একই চিত্র গোটা বিশ্ব জুড়েই। ভারতেও লাফিয়ে বাড়ছে প’র্ন দর্শকের সংখ্যা। তবে গৃহবন্দী অবস্থায় ভারতীয়রা সন্ধান করছেন নানারকম প’র্ন ওয়েসবাইটের। তার জন্য তাঁরা সাহায্য নিচ্ছেন ভিপিএন বা ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক সার্ভিসের। যার ফলে পরিচয় লুকিয়ে ঘুরে আসা যাচ্ছে যে কোনও প’র্ন ওয়েবসাইটে। আর সেখানেই তাঁদের পছন্দের তালিকায় সবার ওপরে রয়েছে দেশি প’র্ন।

প্রতীকী ছবি

এক্সহ্যামস্টার প’র্ন ওয়েসবাইটের প্রধান অ্যালেক্স হকিংস জানিয়েছে, কদিন ধরে ভারত থেকে অনেক বেশি ট্রাফিক ওয়েবসাইটে আসছে। ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ থেকে এক ধাক্কায় সেই সংখ্যাটা বেড়েছে প্রায় ১০ থেকে ২০ শতাংশ। এভাবে কোনও দেশের এত ভিজিটরের সংখ্যা একবারে বাড়েনি। মনে করা হচ্ছে, করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে এখন গোটা দেশ গৃহবন্দী। আর সেই লকডাউনের সময় অখণ্ড অবসরকে কাজে লাগিয়েই লোকে প’র্ন ওয়েবসাইটে যাচ্ছে।

প্রতীকী ছবি

পরিসংখ্যান অনুসারে, দেশের মানুষের আগ্রহ এদেশের প’র্নোগ্রাফিকে ঘিরে। অর্থাৎ তাঁরা ক্লিক করছে দেশি প’র্ন বিভাগে। এছাড়াও, মহিলারাও প’র্ন দেখছেন বিপুল ভাবে। তাঁদের আগ্রহের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে মহিলাদের জন্য প’র্ন বিভাগটিও। সেখানেও নাকি অনেক ভিজিটর আসছে। সমীক্ষায় একটা জিনিস প্রত্যক্ষ করা গিয়েছে যে, বিদেশি প’র্ন নয়, ভারতীয়দের পছন্দ দেশি প’র্ন। অনলাইনে প’র্ন সার্চ করায় ভারতীয়রা সব সময়ে ‘ইন্ডিয়ান’ শব্দটি লিখেছেন বলেও ‘প’র্নহাব’-এর সমীক্ষায় উঠে এসেছে।

প্রতীকী ছবি

প’র্নের বিষয়ে ভারতীয়রা সবচেয়ে বেশি সার্চ করেন ‘ইন্ডিয়ান প’র্ন’-এর সম্পর্কিত যে কোনও বিষয়ে। এর পরেই রয়েছে ‘ইন্ডিয়ান ওয়াইফ’, ‘ইন্ডিয়ান কলেজ’-এর মতো সার্চ। ‘ইন্ডিয়ান অ্যাকট্রেস’, ‘ইন্ডিয়ান টিচার’, ‘ইন্ডিয়ান ভাবি’-মার্কা সার্চগুলোও রয়েছে প্রথম দশের তালিকায়। যেখানে অন্য কোনও দেশের নাগরিকরা বিদেশি প’র্ন-এর খোঁজে অনলাইনে আসেন, সেখানে ভারতীয়রা এই সমন্ধীয় সংখ্যাগরিষ্ট সার্চে ‘স্বদেশিয়ানা’-কেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে।

প্রতীকী ছবি

বিশ্ব জুড়ে ১৬ সেকেন্ড করে মোবাইলে প’র্ন দেখার প্রবণতা বেড়েছে। গত বছর বিশ্বে ৯২ বিলিয়ন পর্ন ভিডিও দেখেছে মানুষ। প’র্ন দেখতে অনলাইনে ওই ১ বছরে সার্চ করেছিলেন ২৩ বিলিয়ন মানুষ। রোজ অন্তত ৬৫ মিলিয়ন ইউজার প’র্নের খোঁজে নেটে আসতেন বলেও সমীক্ষায় জানা গিয়েছে। ভারতে অনলাইনে প’র্ন দেখাদের ৪৮ শতাংশেরই বয়স ১৮ থেকে ২৪-এর মধ্যে। ২৮ শতাংশের বয়স ২৫ থেকে ৩৪-এর মধ্যে বলে সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে। ভারতে মোবাইলে প’র্ন দেখার প্রবণতা অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে। এখানে প’র্ন-এর দর্শনধারীদের ৭০ শতাংশই মোবাইলের মাধ্যমে আসেন।

প্রতীকী ছবি

মহিলারাও প’র্ন দেখায় এগিয়ে এসেছে। এই দেশে নেট ব্যবহাকারীদের মধ্যে অন্তত ৩৫ শতাংশ মহিলা অনলাইনে প’র্ন দেখেছেন। ভারতের ক্ষেত্রেও পরিসংখ্যানটা নজরকাড়া। কারণ, ভারতে নেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে অন্তত ৩৩ শতাংশ মহিলা অনলাইনে প’র্ন দেখতে ভালবাসেন। মনোবিদদের মতে, মহিলাদের যৌ’নক্ষমতা অনেক বেশি শক্তিশালী হয়। তাঁরা পুরুষদের থেকে অনেক বেশি পরিমাণে যৌ’নতাকে উপভোগ করতে পারেন।