ম’দের দোকানে মেয়েদের লাইন, বিত’র্কিত টুইট করে ট্রোলড রামগোপাল

0
556

গোটা দেশ জুড়ে যখন লকডাউন চলছে, সেই সময় ম’দের দোকান খোলা নিয়ে শুরু হয়েছে জোর তরজা। ম’দের দোকান খোলার ফলে রাস্তার উপর যে লাইন পড়ছে, সেখানে মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব। ফলে ম’দের দোকানে যে লাইন পড়ছে, সেখান থেকে করো’না সং’ক্রমণের ঝুঁকি দ্বিগুন হয়ে দাঁড়াচ্ছে বলে অনেকেই অভি’যোগ করতে শুরু করেছেন। সেই সময় ভাইরাল হয় একটি ছবি। যেখানে ম’দের দোকানের সামনে বেশ কিছু মহিলাকে লাইন দিতে দখা যায়।

সেইরকম একটা ছবি টুইটারে শেয়ার করে নারী-বিদ্বে’ষী মন্তব্য করে বসলেন বলিউডের এক বিত’র্কিত ব্যক্তি হিসাবেই পরিচিত পরিচালক আরজিভি বা রামগোপাল বর্মা। অভিযোগ উঠেছে, গা’র্হ্যস্থ হিং’সা নিয়ে নি’ম্নরু’চির ট্যুইট করেছেন রামগোপাল।

একটি ছবিতে দেখা গেছে কয়েকটি মেয়ে মদের দোকানের সামনে লাইনে দাঁড়িয়েছে। সেই ছবিটি নিজের টুইটারে শেয়ার করে নারী বিদ্বে’ষী মন্তব্য করে বসলেন বলিউডের পরিচালক রামগোপাল ভার্মা। টুইট করে তিনি লিখেছেন, “দেখুন কারা মদের দোকানের সামনে লাইন দিয়েছে… ম’দ্যপ পুরুষদের থেকে মহিলাদের বাঁ’চাতে কত বাড়াবাড়িই না করা হয়।”

প্রতীকী ছবি

রাম গোপাল বর্মার এই টুইট ঘিরে সমালোচনার ঝড় উঠে নেটদুনিয়ায়। এদিকে, সোমবার থেকেই মহিলাদের ম’দ কেনার একাধিক ছবি ভাইরাল হয়েছে ফেসবুক-টুইটারে। তাই মেয়েদের ম’দ খাওয়া নিয়েও চলেছে গবেষণা। মহিলাদের ক্ষমতায়ণ, নারী স্বাধীনতা, সমান অধিকারের জন্য যখন গোটা বিশ্বে এত লড়াই চলছে তখনও তাঁদের পোশাক, কিংবা সিগা’রেট ম’দ খাওয়াটাই মহিলার চরিত্রের মাপকাঠি হিসাবে ধরে নেওয়াটা একেবারেই মেনে নিচ্ছে না নারীবাদীরা। তাই সরকার পরিচালকের বিরু’দ্ধে সরব নেটিজেনদের একাংশ।

এই তালিকায় রয়েছেন ঠোঁটকাটা গায়িকা সোনা মহাপাত্র। একটি টুইটারে মাধ্যমে সোনা মহাপাত্র লেখেন, “প্রিয় রামগোপাল বর্মা, তুমিও এবার তাড়াতাড়ি সেই সব মানুষের সঙ্গে লাইনে দাঁড়াও যাদের প্রকৃত শিক্ষার খুব প্রয়োজন। যাতে তুমি বুঝতে পার এই টুইটটা অনৈতিক এবং লি’ঙ্গ বৈষম্যের পরিচয় দিচ্ছে। মহিলাদেরও অ্যা’লকো’হল কেনা এবং পান করবার সম্পূর্ন অধিকার রয়েছে তবে কারুরই ম’দ খেয়ে হিংস্র হওয়ার অধিকার নেই।”