এই ১০ জন পাকিস্তানি অভিনেত্রীর সৌন্দর্য্য দেখলে আপনিও ফিদা হয়ে যাবেন

0
1182

বলিউড চলচ্চিত্র জগতের উন্মাদনা শুধুমাত্র ভারতেই নয়, পৃথিবীর আরও অন্যান্য দেশেও রয়েছে। সেই কারণেই তো বলিউডের সিনেমাগুলি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেমন চীন, পাকিস্তান, জাপান, পোল্যান্ড ইত্যাদি জায়গায় দেখানো হয়। এমনকি আমেরিকাতেও যথেষ্ঠ জনপ্রিয় বলিউড সিনেমা। এমত অবস্থায় বিভিন্ন দেশের অভিনেত্রীদেরও দেখা যায় বলিউড সিনেমায় নিজেদের প্রতিভা দেখাতে ।

বিশেষ করে পাকিস্তানি অভিনেত্রীদের বলিউড সিনেমা নিয়ে একটু বেশিই উন্মাদনা রয়েছে। সেই কারণে মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন পাকিস্তানি অভিনেত্রীকে দেখা যায় বলিউড সিনেমায় কাজ করতে। কিছু পাকিস্তানি অভিনেত্রী এমনও রয়েছেন যাদের সৌন্দর্য্য এবং প্রতিভা কোনো অংশে কম নয়, তবুও তারা বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে সুযোগ পায়নি এখনও। এই পাকিস্তানি অভিনেত্রীদের দেখে অনেক বলিউড ফ্যান আফসোসও করতে পারেন যে, এই অভিনেত্রীরা বলিউড সিনেমায় কাজ করলে সত্যিই মজা পাওয়া যেত। আমাদের কথা বিশ্বাস না হলে নিজের চোখেই দেখে নিন –

মায়া আলি

মায়া একজন জনপ্রিয় পাকিস্তানি অভিনেত্রী, মডেল এবং ভি.জে.। মায়া তার কেরিয়ারের শুরুটা করেছিলেন একজন ভিডিও জকি হিসেবে, এরপর কয়েকটি সিরিয়ালে অভিনয় করে খ্যাতি অর্জন করেন। সম্প্রতি আলি জাফরের বিপরীতে অভিনয় করেন একটি পাকিস্তানি সিনেমায় ।

মেহবিশ হায়াত

৩২ বছর বয়সী মেহবিশ একজন প্রসিদ্ধ পাকিস্তানি মডেল। অনেকগুলি টিভি শো-তে কাজ করেছেন মেহবিশ, তার মধ্যে ‘মেরা কাবিল মেরা দিলদার’ এবং ‘শেরাজ দিল কে দরবাজে’ নামের শো দুটি সুপারহিট ছিল। মেহবিশ অভিনেত্রী ও মডেল হওয়ার পাশাপাশি একজন দক্ষ গায়িকাও।

আয়েজা খান

আয়েজা পাকিস্তানের সুন্দরীদের মধ্যে একটি পরিচিত মুখ। অভিনয়ের পাশাপাশি আয়েজার স্টাইল ও সৌন্দর্য্য তার জনপ্রিয়তার অন্যতম কারণ। মাত্র ১৬ বছর বয়সে মডেলিং-এর মাধ্যমে নিজের কেরিয়ার শুরু করা আয়েজা একাধিক পাকিস্তানি টিভি শো-তে মূখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

সানাম জঙ্গ

সানাম কেরিয়ারের শুরুটা করেছিলেন একজন ভিডিও জকি হিসেবে। কিছু সময় পর তিনি ‘দিল এ মুজতর’ সিরিয়ালের মাধ্যমে অভিনয় জীবনে পথ চলা শুরু করেন। সানামের প্রথম শো-টাই ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছিল এবং তারপর একের পর সিরিয়ালের অফার পান। সানামের গ্লামারাস লুক এবং এক্সপ্রেসনের জন্য পাকিস্তানে অজস্র ভক্ত রয়েছে তার।

হারিম ফারুক

হারিম পাকিস্তানের একজন বহু চর্চিত অভিনেত্রী এবং সিনেমা প্রযোজক। অনেকগুলি হিট সিরিয়ালের পাশাপাশি সিনেমাতেও কাজ করেছেন হারিম। এছাড়াও ‘জনন’ সিনেমায় তিনি সহ-নির্মাতা ছিলেন। ২০১৮ -এর পাকিস্তান সুপার লিগ হোস্ট করা প্রথম মহিলা ছিলেন হারিম ফারুক।

মেহরীন রাহিল

মেহরীন একজন অভিনেত্রী, মডেল, হোস্ট হওয়ার পাশাপাশি নিজেদের পারিবারিক কোম্পানি ‘R vision’ -এর ম্যানেজিং ডাইরেক্টর। একাধিক হিট টিভি শো-তে অভিনয় করেছেন মেহরীন এবং ২০১০ সালে ‘বিরসা’ সিনেমার মাধ্যমে তার বড় পর্দায় অভিষেক হয়।

সানাম বালোচ

সানাম নিজের কেরিয়ারের শুরুটা করেছিলেন একজন টিভি সঞ্চালিকার ভূমিকায় এবং অল্প সময়ের মধ্যেই টিভির একটি জনপ্রিয় মুখ হয়ে উঠেন সানাম। অনেক টিভি শো-তে কাজ করছেন বর্তমানে। সানামের অভিনয় করা ‘দাস্তান’ সিরিয়ালটির জন্য সে পাকিস্তান মিডিয়া অ্যায়ার্ডস -এর তরফ থেকে শ্রেষ্ঠ নায়িকার পুরষ্কারও জিতে নেয়।

সানা বুচা

একজন সাংবাদিক হিসেবে নিজের কেরিয়ার শুরু করেছিলেন সানা। পাকিস্তানের জিও নিউজ চ্যানেলের জন্য প্রথম কোনোও মহিলা হিসেবে ইংরাজিতে খবর প্রস্তুত করেন এবং সেটি সঞ্চালনাও করেন। পরবর্তীকালে সানা ‘ইয়ালগার’ নামের পাকিস্তানি সিনেমায় মূখ্য নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করেন।

এইনি জাফরি

এইনি ৩০ বছর বয়সে ‘মেরি বেহেন মায়া’ নামের পাকিস্তানি টিভি সিরিয়ালের মাধ্যমে নিজের অভিনয় জীবন শুরু করেন। এইনির এই সিরিয়ালটি বেশ সাফল্য পেয়েছিল। এইনির সৌন্দর্য্য আর ফিটনেস দেখলে তার বয়সের আন্দাজ করা খুবই মুশকিল।

ইমান আলি

মডেল এবং অভিনেত্রী ইমান আলি, ‘আরমান’ এবং ‘কিস্মত’ এর মত পাকিস্তানি ধারাবাহিকে কাজ করেছেন। এরপর ‘খুদা কে লিয়ে’ সিনেমায় অভিনয় করার তিনি জনপ্রিয় পাকিস্তানি অভিনেত্রীদের তালিকায় সামিল হয়ে যান। এই সিনেমার জন্য ইমান লাক্স স্টাইল অ্যাওয়ার্ড শো-এর তরফ থেকে সেরা নায়িকার পুরষ্কার পেয়েছিলেন।

আর্টিকেলটি ভালো লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আর কমেন্ট করে জানান এর মধ্যে কোন অভিনেত্রীকে আপনি বলিউডে দেখতে চান।

ছবি – ইনস্টাগ্রাম