গাছের ডালে ফাঁ’সি দেওয়া হল হনুমানকে, ক’ষ্টের ছটফটানি দেখে প্রত্যক্ষদর্শীরা দিলেন হাততালি

0
127

ভারতে পশু নি’র্যাত’নের ঘটনা থামছেই না। কেরলের গ’র্ভব’তী হাতি হ’ত্যার পর অবস্থার পরিবর্তনের আশা করা হয়েছিল। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে তা ঘটেনি। তারই মধ্যে চরম ব’র্বর’তার ছবি ধরা পড়ল তেলেঙ্গানায়। এবার ফাঁ’সি দিয়ে হ’ত্যা করা হল এক হনুমানকে। ছটফট করে মৃ’ত্যুর কোলে ঢোলে পড়ল সে। আর সেই দৃশ্য রীতিমতো উপভোগ করে হাততালি দিল ভিড় জমানো জনতা।

তেলেঙ্গানা বন বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, খাম্মাম জেলায় স্রেফ অন্য হনুমানদের ভ’য় দেখানোর জন্য একটি হনুমানকে তিন ব্যক্তি একটি গাছের ফাঁ’সি দিয়ে হ’ত্যা করেছে। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় হনুমানকে খু’নের এই ম’র্মান্তি’ক দৃশ্যের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। তারপরই প্রকাশ্যে ঘটনাটি। ভিডিওতে স্পষ্ট দেখা যায়, তেলেঙ্গানার খাম্মান জেলার আম্মাপালেম গ্রামে এক হনুমানকে ধরে বেঁধে গলায় ফাঁ’স দিয়ে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

খাম্মাম জেলার ভেমসুর গ্রামে হনুমানটিকে ফাঁ’সি দেওয়ার ঘটনা আবার ঘটা করে ভিডিও রেকর্ড করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হয়েছিল। কিছুক্ষনের মধ‍্যেই প্রা’ণ হা’রায় সে। যে দৃশ্য দারুণ উপভোগ করছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। সেই নক্কা’রজনক পশু নি’র্যাত’নের ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায় এবং বিষয়টি বন দপ্তরের কর্মকর্তাদের নজরে আসে। তাঁরা সঙ্গে সঙ্গেই ঘটনার তদ’ন্ত শুরু করেছিলেন।

স্থানীয় সংবাদ মাধ‍্যম সূত্রে জানা যায়, গত বেশ কয়েকদিন ধরে সাথুপল্লী এবং আশেপাশের অঞ্চলে বাগানে বাগানে হনুমানদের দা’পাদা’পিতে রাতের ঘুম উড়ে গিয়েছিল স্থানীয় বাসিন্দাদের। এরপরই ভেমসুর গ্রামের ওই তিন ব্যক্তি ফাঁ’দ পেতে একটি হনুমানকে ব’ন্দি করে। অ’ভিযু’ক্তদের দাবি, অন্যান্য হনুমানরা ওই দৃশ্য দেখে ভ’য় পেয়ে আর উৎপাত করবে না ভেবেই ওই অব’লা জীবটিকে তারা একটি গাছের ডালে ফাঁ’স তৈরি করে তার সঙ্গে ঝুলিয়ে শ্বা’সরো’ধ করে মে’রেছে।

আশ্চর্যজনক ভাবে এমন ঘটনার প্রতি’বাদও করেনি অন্যরা। বরং এই হনুমান ব’ধের মজার দৃশ্য উপভোগ করতে সেখানে লোক জড়ো হয়ে যায়। ওই ব্যক্তির সাহায্যে পাশেও দাঁড়ায় অনেকে। মানব সমাজের এমন নি’র্মম রূপ দেখে হতবাক নেটদুনিয়া। ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই নি’ন্দার ঝড় বইছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

লোকালয়ে হনুমানদের হা’না দেওয়া নিয়েও উদ্বি’গ্ন বনকর্তারা। তাদের দাবি মাত্রাতিরিক্ত ভাবে বনাঞ্চল ধ্বংস করে জনবসতি গড়ে উঠছে। এর জন্যই বনাঞ্চলে খাদ্যাভাবে পড়ছে হনুমানরা। তাই লোকালয়ে ঢুকে পড়ছে খাদ্যের সন্ধানে। বনাঞ্চলে পর্যাপ্ত খাবার পেলে তারা আর লোকালয়ে আসবে না।

তবে এই প্রথম নয়, চলতি মাসেই অসমের বরাক উপত্যকার কাছার জেলায় ১৩টি হনুমানের মৃ’ত্যু হয়। জানা যায়, বি’ষ খাওয়ার ফলেই প্রা’ণ হা’রিয়েছিল তারা। বন্যসমাজের উপর মানব সমাজের একাংশের এই হিং’স্র আচরণ মেনে নিতে পারছেন না পশুপ্রেমীরা।

ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়তেই খবর পৌঁছায় পু’লিশের কানে। ঘটনায় জড়িত তিনজনকে এখনও পর্যন্ত গ্রে’প্তার করা হয়েছে। অপরা’ধীরা তাদের অপরা’ধ স্বীকার করেছে। বন দপ্তর থেকে তাদের বি’রুদ্ধে বন্যপ্রাণী সুরক্ষা আ’ইনে মা’মলা করা হয়েছে। তারা ওই গ্রামে গিয়ে নিহ’ত হনুমানটির পচা-গলা লা’শ উদ্ধার করেছেন। সেই দেহের ম’য়নাত’দন্ত করা হচ্ছে।

দেখুন সেই ভিডিও –

সূত্র –