দুনিয়ার সবচেয়ে বাজে ১০টি চাকরি, যেগুলি কুরুচিকর হলেও বাস্তবে রয়েছে

0
3235

এই তালিকার শেষ অবধি পৌঁছানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন!
আমি অনুমান করি যে, অধিকাংশ মানুষই তাদের কাজকে ঘৃণা করে। সর্বোপরি এটি মানুষের প্রকৃতি, আমাদের চারপাশের বিষয়গুলির ব্যাপারে অভিযোগ করা এবং মুখ গোমড়া করে থাকা। কিন্তু এই ধরণের কাজগুলি আদও কি অভিযোগ করার যোগ্য?

হ্যাঁ, আমরা অনেক বড় বিশ্বে বসবাস করি। বাতকর্মের গন্ধ শোঁকা থেকে শুরু বমি সংগ্রহ করা এমন সব অদ্ভুত কাজ রয়েছে সারা বিশ্বে যেগুলি আপনার প্রাণ ওষ্ঠাগত করতে পারে। আপনি কি জানেন, এমন কিছু লোকজনও আছে যাদের কাজ, খামারবাড়িতে থাকা প্রাণীদের হ’স্তমৈ’থুন করিয়ে দিতে হয়? আপনি এই ব্যাপারটি নিশ্চয় জানতেন না। আর যদি জেনে থাকেন তাহলে বলবো, আপনি সত্যিই অনেক কিছু দেখেছেন।

আজ আমরা আপনাদের এমন কিছু কাজ নিয়ে এসেছি, যা বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ কাজগুলির মধ্যে শ্রেণীবদ্ধ হতে পারে!

এক নজর দেখে নিন।

খামারবাড়ির পশুদের হ’স্তমৈ’থুনকারী

খামারবাড়ির হ’স্তমৈ’থুনকারীর কাজ কি হতে পারে তা আপনারা কাজের নাম দেখেই আন্দাজ করতে পারছেন। এনাদের কাজ হয় খামারে থাকা পশু-প্রাণীদের হ’স্তমৈ’থুন করে দিয়ে সিমেন নিঃসরণ করা, যেটি পশুদের কৃত্রিম প্রজননের সময় প্রয়োজন হয়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে তাদের সরাসরি নিজস্ব হাত ব্যবহার করতে হয়। থাক আর গভীরে গিয়ে লাভ নেই।

মুরগীর লি’ঙ্গ নির্ধারক

মুরগীর লি’ঙ্গ নির্ধারকের কাজ হল পোলট্রি ফার্মে থাকা সদ্যজাত মুরগীগুলিকে স্ত্রী না পুরুষ সেটি নির্ধারণ করা। কারণ পুরুষ মুরগীদের পাঠিয়ে দেওয়া হয় অন্যত্র, যেগুলি মাংস উৎপাদনের কাজে ব্যবহার করা হয়, আর স্ত্রী মুরগীগুলোকে রেখে দেওয়া হয় ডিম পাড়ার জন্য। এই কাজের কর্মচারীদের মাঝেমধ্যে মুরগীর কিছুটা মল বের করে তার অন্ত্র পরীক্ষা করে দেখতে হয়।

হাতির পায়ুদ্বার তত্ত্বাবধায়ক

ঠিক আছে, এই এক কাজের জন্য শিরোনাম নির্ধারণ করা কঠিন, কিন্তু আপনি দেখতে পারেছেন, এতে হাতির মলদ্বার পরীক্ষা করতে হয়। হাতির পাচনতন্ত্রে কিছু ভুল হলে তা নিরীক্ষণের সময় এমন জিনিস করতে হতে পারে বা এটি নিয়মিতভাবে করা হয়।

বাতকর্মের গন্ধ শোঁকা

ঔষধের একটি শাখা যা পাচনতন্ত্র এবং তার রোগের সাথে সম্পর্কযুক্ত হয় তাকে গ্যাস্ট্রোন্টারোলজি বলা হয়। তাদের বাতকর্মের গন্ধ শোঁকার লোকের প্রয়োজন পড়ে।

পোষ্যের খাওয়ার চেখে দেখা

এই কাজের জন্য এমন লোকের প্রয়োজন হয় যারা কুকুরের খাবার সুস্বাদু, স্বাস্থ্যকর এবং না দুর্গন্ধযুক্ত তা নির্ধারণ করার জন্য তার খাবার টেস্ট করে দেখে। হ্যাঁ, এমন কাজের জন্যও লোক পাওয়া গেছে।

সরীসৃপের দাঁত পরীক্ষক

সম্ভবত এটাই সবচেয়ে ভয়ঙ্কর কাজ। হ্যাঁ বুঝতে পারছি যে, তাদেরও দাঁতের যত্ন দরকার, তা বলে এটা একটু বেশি ঝুঁকি সাপেক্ষ নয় কি!

বন্দুকের তাকের জন্য বোর্ড ধরে থাকা

এটা তো কিছুতেই বুঝতে পারছি না, এরকমটা করার কি দরকার। বোর্ডটা মেঝেতে আটকে দিলেই তো ঝামেলা মিটে যায়। তার বদলে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে এই কাজ।

বগলের গন্ধ শোঁকা

হ্যাঁ, এই ধরণের কাজও রয়েছে। আমরা যে ডিও গুলি ব্যবহার করি সেগুলি বাজারে আসার আগে নানারকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। এটি তারই অঙ্গ, দেখে নেওয়া হয় ডিওটি কতক্ষণ কাজ করছে।

বমি সংগ্রাহক

বিদেশের বিভিন্ন ধরণের পার্কে এনাদের দেখা যায় যেখানে রোলার-কোস্টার রয়েছে, কারণ তাতে চড়ে অনেকেই বমি করে ভাসান।

তিমির মল পরীক্ষক

তিমির মল পরীক্ষকদের মল সংগ্রহ করতে হয় জল থেকে তাও সীমিত সময়ের মধ্যে, যাতে সেটি ডুবে না যায়। তিমির জীনগত বৈশিষ্ট্য, হরমোন, বায়োটক্সিনের মাত্রা প্রভৃতি জানতে এটি করা হয়। এতি দ্বারা বিপন্ন প্রজাতির তিমিদের রক্ষা করার জন্য করা হয়।

কমেন্ট করে জানান, এর মধ্যে কোন কাজটি আপনার সবচেয়ে কুরুচিকর মনে হল। মজা পেলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন।