বারবার লুডো খেলায় হেরে গিয়ে পি’টিয়ে বউয়ের কোমড় ভে’ঙ্গে দিল স্বামী

0
892

করো’না ভাই’রাসের সংক্র’মণ রুখতে লকডাউন। বাড়িতেই সময় কাটাতে হচ্ছে সকলকে। তাই এখন অনেকেই অনলাইনে বিভিন্ন খেলা খেলছেন। আর এই অনলাইনে লুডো খেলার আনন্দ বি’ষাদে পরিণত হল এক মহিলার জন্য। ওই যুবতী লুডো খেলায় তাঁর স্বামীকে তিন-চারবার পরাজিত করেন, যা নিয়ে দু’‌জনের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়ে যায়। পরপর স্বামীকে হারিয়ে দেওয়ায় তার হাতে নৃ’শংস’ভাবে বেধড়ক মেরে তাঁর শিরদাঁড়া ভে’ঙে দিয়েছে স্বামী।

শিরদাঁড়ায় গুরুতর চোট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ২৪ বছরের যুবতী। গোটা ঘটনাটি বলতে গিয়ে ১৮১ অভয়াম হেল্পলাইনের কাউন্সেলরস জানিয়েছেন যে ভেমালিতে ওই যুবতী টিউশন ক্লাস করান পরিবারকে আর্থিক সহায়তা করার জন্য।

তাঁর স্বামী যাতে বাইরে গিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে সময় নষ্ট না-করে বাড়িতেই থাকে, সে জন্য তার মধ্যে অনলাইন লুডো খেলার নে’শা ধরিয়েছিলেন যুবতী। কিন্তু তার জন্য যে এমন মূল্য চোকাতে হবে, তা বোধহয় ঘূণাক্ষরেও টের পাননি তিনি। এরপর ওই মহিলা লুডোয় তাঁর স্বামীকে ৩ থেকে ৪ বার হারিয়ে দেন। এরপর যুবতীর স্বামী তাঁর সঙ্গে ত’র্ক করতে শুরু করেন যা হিং’সায় পরিণত হয়। এরপর যুবতীর স্বামী তাঁকে বেধ’ড়ক মা’রধর করতে শুরু করে দেয় এবং যুবতীর মেরুদণ্ডের মাঝে একটি ফাঁক তৈরি হয়েছে এই মারের ফলে। যুবতীকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে এবং তিনি তাঁর মা-বাবার সঙ্গেই থাকবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

কাউন্সেলর জানান, ‘হারতে হারতে স্ত্রীর সঙ্গে ত’র্ক বেঁধে যায় লোকটির। ক্রমেই তা চরম আকার ধারণ করে। স্ত্রীকে মা’রধর শুরু করে সে। নৃ’শং’সভাবে মারতে থাকে।’ এক কাউন্সেলরের কথায়, ‘স্ত্রীর কাছে হেরে যাওয়ায় পুরুষ ইগোতে আ’ঘাত লাগে লোকটির। স্ত্রী সংসারও চালাতেন, ফলে সে দিক থেকেও একটা হিনমন্যতায় ভুগত।’ তার উপার্জন যথেষ্ট না-হওয়ায়, তার স্ত্রী টিউশন করা শুরু করে ও বিউটিশিয়ানের কোর্স করেন। এই ঘটনার পর ক্ষমা চেয়ে নিয়েছে অভিযুক্ত। নিজের ভুল স্বীকার করে নিয়েছে সে। স্ত্রী থা’নায় অভি’যোগ দায়ের করলে তাকে গ্রে’ফতার করা হতে পারে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সূত্র –