সোমবার বিকেল থেকেই লক ডাউনের পথে কলকাতা সহ রাজ্যের পুরশহরগুলি!

0
427

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণা লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিল প্রশাসন। বাকি পুর শহরগুলি নিয়ে সিদ্ধান্ত এখনও নেওয়া হয়নি। তবে সোমবার বিকেল চারটে থেকে দুই পুর শহরকে লকডাউন করা হবে বলে খবর। চলবে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত। রবিবার কেন্দ্রের তরফে দেশে ৭৫টি জেলা লকডাউনের পরামর্শ দেওয়া হয়। এরমধ্যে কলকাতাও রয়েছে। কেন্দ্রের সেই সুপারিশ মেনে তড়িঘড়ি লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার।

ভারতে ধীরেধীরে ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস। ইতিমধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৭০। পশ্চিমবঙ্গেও আক্রান্তের সংখ্যা এখন চার। রবিবার সারা দেশজুড়ে চলছে ‘জনতা কারফিউ’। আর তার মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে কেন্দ্রের তরফে সুপারিশ করা হয়েছে, লক ডাউন করে দেওয়া হোক কলকাতাকে।

প্রতীকী ছবি

আগামিকাল বিকেল ৪টে থেকে লকডাউন হয়ে যাচ্ছে কলকাতা-সহ সমস্ত পুরশহরগুলি। লকডাউনে মিলবে শুধুমাত্র অত্যাবশ্য়কীয় পণ্য। পেট্রোপণ্য যেমন ডিজেল, কেরোসিন, ন্যাপথা, সলভেন্ট, খাদ্যদ্রব্য, ওষুধের দোকান,প্যাথলজি ল্যাবের মতো অত্যবশ্যকীয় পরিষেবা পাবে সাধারণ মানুষ। অ্যাম্বুলেন্স, হাসপাতাল, চিকিৎসা ব্যবস্থা লকডাউনের আওতার বাইরে। সবজি বাজার, মুদিখানা, গ্যাসের দোকান, ওষুধের দোকান, মাছ বাজার, সরকারি বাস। সাধারণ মানুষের জন্য আর কিছুক্ষণের মধ্যেই সরকারি বিজ্ঞপ্তি জারি করে বিস্তারিত জানানো হবে।

বিশেষজ্ঞরা আগেই বলেছিল, করোনা রুখতে লকাডাউন ছাড়া আর কোনও উপায় ছিল না। অন্যথায় সামাজিক মেলামেশা এড়ানো যেত না। তাই কার্যত বাধ্য হয়ে এই সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, বিশ্বের যে যে দেশে মহামারি করোনা রোখা গিয়েছে, তারা লকডাউনের পথে হেঁটেছে। তবে লকডাউন নিয়ে অযথা আতঙ্ক নয় এমনই বার্তা দিয়েছে প্রশাসন। ইতিমধ্যেই করোনা সংক্রমণ রুখতে আন্তঃরাজ্য বাস যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে রাজ্য সরকার।