পিরিয়ড চলাকালীন রান্না করলে পরজন্মে কুকুরী হয়ে জন্মাবে মেয়েরা – বললেন ধর্মগুরু

0
473

ঋতুমতী অবস্থায় বা পিরিয়ড চলাকালীন রান্না করলে পরের জন্মে কুকুর হয়ে জন্মাতে হবে। মেয়েদের পিরিয়ড নিয়ে এমন মন্তব্যে ফের ছড়াল চাঞ্চল্য। স্ত্রীর পিরিয়ড চলাকালীন তাঁর রান্না করা খাবার খেলে পরের জন্মে ষাঁড় হয়ে জন্মাবেন স্বামী। আর সেই নারী পরজন্মে কুকুর হয়ে জন্ম নেবেন। এমনই ভবিষ্যদ্বাণী করলেন গুজরাতের ভূজ শহরের স্বামীনারায়ণ মন্দিরের ধর্মগুরু স্বামী কৃষ্ণস্বরূপ দাসজি।

এই ভূজের স্বামীনারায়ণ মন্দিরের ভক্তদের দ্বারা পরিচালিত কলেজেই কিছু দিন আগে ৬৮ ছাত্রীর ঋতুস্রাব পরীক্ষা করতে অন্তর্বাস খুলতে বাধ্য করার অভিযোগ উঠেছিল। ঘটনার জেরে এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল এবং কলেজের অধ্যক্ষ রিতা রানিঙ্গা, হস্টেলের রেক্টর রমিলাবেন এবং পিয়ন নয়নাকে সাময়িক সাসপেন্ড করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, গুজরাতের ভুজের শ্রী সহজানন্দ গার্লস ইন্সটিটিউট, মোদিরাজ্যের এই কলেজে নিয়মকানুন অদ্ভুত। ঋতুমতী ছাত্রীদের সকলের থেকে আলাদা করে রাখা হয়। তাঁদের হস্টেলে থাকতে দেওয়া হয় না। এই সময় তাঁদের ঠাঁই হয় কলেজের বেসমেন্টে। পিরিয়ড চলাকালীন কলেজ চত্বরের মন্দির ও ক্যান্টিনেও ঢুকতে দেওয়া হয় না পড়ুয়াদের। গত সপ্তাহে এই নিয়মই ভাঙার অভিযোগ ওঠে। বাগানে পাওয়া যায় একটি ব্যবহৃত প্যাড।

দেখুন ভিডিও –

তারপরই বর্বরোচিত আচরণ কলেজ কর্তৃপক্ষের। ক্লাসচলাকালীনই প্রিন্সিপাল আসেন। পড়া থামিয়ে তাঁদের জিজ্ঞাসা করা হয়, কোন ছাত্রীরা ঋতুমতী। তারপর ৬৮ জন ছাত্রীকে লাইন করে শৌচালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। পিরিয়ডস হয়েছে কিনা জানতে তাঁদের অন্তর্বাস খোলানো হয়। সেসময় উপস্থিত ছিলেন কলেজের প্রিন্সিপালও। ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই নড়েচড়ে বসে জাতীয় মহিলা কমিশন। অভিযোগ খতিয়ে দেখে প্রিন্সিপাল ও হোস্টেলের ওয়ার্ডেন সহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ভুজে একটি ধর্মীয় সভায় কাউনসেলিং করার সময়ে ওই সাধু এহেন মন্তব্য় করেন বলে জানা গিয়েছে।  তাঁর কথায়, “আপনারা কী মনে করবেন তা জানি না। তবে এটাই শাস্ত্রের নিয়ম।” এদিকে এই মন্তব্য়ে প্রশ্ন উঠেছে,  মেয়েদের ঋতুচক্র নিয়ে এদের এত কেন সমস্য়া তা বোধগম্য় নয়। মাসের মধ্য়ে যে-কটা দিন এই ঋতুচক্র চলে, সেই সময়ে কি ঘরের কাজ তাহলে বন্ধ থাকবে?  মহিলারা কেউ কেউ বলছেন, তাহলে তো ভালই হয়। ওই দিনগুলোতে পুরুষরাই সামাল সামলাবে ঘরগেরস্থালির কাজ।