এবার নিলামে উঠেছে মিয়া খলিফার এই জিনিসটি

0
502

প’র্নো দুনিয়ার জনপ্রিয় নাম ছিল মিয়া খলিফা। তবে সবই এখন অতীত। মিয়া খলিফা প’র্নো দুনিয়া ত্যাগ করে অন্য পেশায় মনোযোগী হয়েছেন। সম্প্রতি বিয়ে করে সংসারী হওয়ার প্রস্তুতিও নিয়েছেন। বয়ফ্রেন্ডকে নিয়ে বেশ সুখে আছেন তিনি। যখন পেশাদার প’র্নোস্টার ছিলেন তখন তাকে খু’নের হু’মকি দিয়েছিল নিজের দেশ লেবাননের কট্ট’রপ’ন্থীরা। দেশটিতে প্রবেশাধিকারও হারান তিনি। কিন্তু আজ মাতৃভূমির সং’কটে তিনিই এগিয়ে এলেন সাহায্যের হাত বাড়িয়ে।

সম্প্রতি ভ’য়াবহ বি’স্ফোরণে বি’ধ্বস্ত লেবানন। দেশের পাশে দাঁড়াতে অর্থসংগ্রহের মিশনে নেমেছিন মিয়া খলিফা। সেজন্য তিনি নিজের বিখ্যাত চশমা নিলামে তুলেছেন। এ থেকে সংগৃহীত অর্থ তিনি ত্রাণে তুলে দিতে চান।

 

এ প্রসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় মিয়া খলিফা জানান, লেবাননের পাশে দাঁড়াতে তার বিখ্যাত চশমা নিলামে তুলছেন তিনি। সেটি বিক্রি করে যে অর্থ তিনি পাবেন, তা বি’স্ফোরণ বি’ধ্বস্ত দেশের রেড ক্রসের ত্রাণ তহবিলে দান করবেন।

গ্লোবাল নিউজ জানিয়েছে, মিয়া চশমাটি ই-বেয়’তে নিলামে তুলেছেন। সেটির মূল্য এখন পর্যন্ত এক লাখ ডলার উঠেছে। নিলাম চালু ছিল (১৫ই আগস্ট) বিকাল পর্যন্ত। এই নিলাম থেকে যা অর্থ উঠবে তা পুরোটাই লেবাননের রেড ক্রসের হাতে তুলে দেবেন মিয়া।

View this post on Instagram

The Lebanese government has resigned. Parliament is next. By choice or by force, either way, Lebanon has had enough while simultaneously having NOTHING. 6 days left on the auction for the original mia khalifa glasses to 100% benefit the @lebaneseredcross. Head to the link in my bio and let’s try to make a positive difference. Keep bidding, keep sharing, keep following accounts like @lebaneseredcross @beiruting @rimafakih @mouin.jaber @ginoraidy @thawramap @impact.lebanon @rebuilding.gemmayze @lebfoodbank. Keep sharing the links for fundraisers by the people, for the people, and DO NOT DONATE A SINGLE PENNY TO THE CORRUPT GOVERNMENT BACKED ORGANIZATIONS. The ones who hoard relief money, medical supplies, and food- only to re-sell to the Lebanese people at a 150% mark up. The ones who sit behind and watch the famine, economic collapse, and displacement of their own people on tv from their vacation homes in London, France, and Australia. Ban these pigs from every country in the world until they’re forced to live the same lifestyle they’ve imposed on the people in Lebanon.

A post shared by Mia K. (@miakhalifa) on