সাহায্যের জন্য চাওয়া টাকা হাতে পেয়েই পাকিস্তানি প্রেমিককে ফেসবুকে ব্লক করলো তরুণী

0
953

মহিলাদের অনেক সময়ই কিছুটা কৃপণ মনে করা হয়, যখন নিজেদের ট্যাঁক থেকে পয়সা খরচ করার প্রশ্ন উঠে। তবে বয়ফ্রেন্ড বা স্বামীর টাকা খরচ করতে দ্বিধাবোধ করেন এমন মহিলা কমই আছেন। আর তার সাথে বয়ফ্রেন্ড বা স্বামীর যেকোনোও জিনিস ব্যবহার করতেও সংকোচ বোধ করেননা মহিলারা। এরকমই এক ঘটনা সম্প্রতি সামনে এসেছে যা সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ হাসির খোরাক হয়ে উঠেছে। ফিলিপাইন্সের বাসিন্দা এক মহিলা তার পাকিস্তানি বয়ফ্রেন্ডের থেকে টাকা পেয়েই সেই যুবককে ফেসবুকে ব্লক করে দেয়, যেটিই ছিল তাদের দুজনের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম ।

বর্তমান যুগ হল ডিজিটাল যুগ। হাতের আঙুলের ডগার এক ছোঁয়াতেই বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং অ্যাপ বা ডেটিং অ্যাপ থেকে মনের মত পার্টনার খুঁজে নিচ্ছেন তরুণ-তরুণীরা। তবে সবক্ষেত্রে যে সম্পর্ক সফল হয় তাও নয়, অনেক সময় এই ডিজিটাল প্রেমের ফাঁদে পড়ে বোকা হতে হয়। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্য, এক দেশ থেকে অন্য দেশের তরুণ তরুণীর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়, তবে সেটার সমাপ্তি সুখের হবে না দুঃখের হবে কেউ আন্দাজ করতে পারে না আগে থেকে।

ফিলিপাইন্সের লোকজন অত্যন্ত যত্নবান, ধৈর্য্যশীল এবং ভালোবাসার মতোই হন সাধারণত। অনেক সময়ই বলা হয় ফিলিপাইন্সের কোনোও মহিলা যদি স্ত্রী হয় তাহলে সেটা সৌভাগ্যে ব্যাপার। কিন্তু এক্ষেত্রে এই মহিলা সমস্ত ফিলিপাইন্স বাসীর খ্যাতি একাই নষ্ট করে দিয়েছেন।

মাফি মাহলুম সাদিখ নামের এক পাকিস্তানি ব্যক্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় কিছু ছবি ও একটি ঘটনা শেয়ার করেছেন, যেটি দেখে আপনারা সকলেই হয়তো হাসবেন কিন্তু ওই ব্যক্তিকে অনেকটা ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়েছে এই ঘটনার কারণে। পাকিস্তানি ব্যক্তির শেয়ার করা ওই পোস্টে দেখা যায় কিছু স্ক্রিনশট, যেখানে ভিডিও কলিংরত মহিলা হাতে বেশ কিছু পরিমাণ টাকা ধরে রয়েছেন। আর ওই টাকাগুলি মহিলাকে দিয়েছেন পাকিস্তানি ব্যক্তিটি।

ওই পাকিস্তানি ব্যক্তির শেয়ার করা পোস্ট থেকে জানা যায়, ফিলিপিনা মহিলা ওই ব্যক্তির থেকে সাহায্যের জন্য কিছু টাকা চান, যেহেতু মহিলার বাবা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত টাকা পাঠানোর পরই ফিলিপিনা মহিলা ফেসবুকে ব্লক করে দেন ওই পাকিস্তানি ব্যক্তিকে।

এই ঘটনায় পাকিস্তানি ব্যক্তি ভীষণভাবে বিরক্ত হন এবং সমস্ত ফিলিপাইন্সের মহিলাদের দোষারোপ করেন এই ঘটনার জন্য। আপাতত ফিলিপাইন্সের ওই মহিলা টাকা নিয়ে কেটে পড়েছেন তবে এই ঘটনার খারাপ প্রভাব পড়েছে ফিলিপাইন্সের খ্যাতির উপর। ফিলিপাইন্সের সব মহিলায় এরকম নন ঠিকই তবে ওই পাকিস্তানি ব্যক্তির কাছে এই দুঃস্বপ্নের মতোই হয়ে থাকবে।

তাই আপনাদের বলি, সোশ্যাল মিডিয়ায় কাউকে অন্ধবিশ্বাস করবেন না। আপনার প্রয়োজন মতো সময় নিন সঠিক মানুষটিকে চেনার জন্য। অন্যথায় এই পাকিস্তানি ব্যক্তির মতো প্রেমে পড়ে সাহায্য করতে গিয়ে উলটে ব্লক জুটবে কপালে।

source