‘যাই একটু ভাইরাস ছড়িয়ে আসি’, বলে বেড়িয়ে পরলেন করোনা আক্রান্ত রোগী

0
531
প্রতীকী ছবি

করোনা আতঙ্কে কাঁটা গোটা বিশ্বে। হু হু করে বাড়ছে সংক্রামিত এবং মৃতের সংখ্যা। সংক্রামিত সন্দেহে কোয়েরেন্টাইন করা হয়েছে অনেককেই। জাপানে এখনও পর্যন্ত কমপক্ষে হাজার জনের শরীরে মিলেছে ভাইরাসের প্রমাণ। এই পরিস্থিতিতে আজব কাণ্ড ঘটালেন এক করোনা আক্রান্ত। পাবে, বারে গিয়ে করোনা ছড়ানোর লক্ষ্যে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন এক ব্যক্তি। বিষয়টি জানাজানি হতেই। তাঁকে ধরে হাসপাতালে ভর্তি করে দিল পুলিশ। জাপানের গামাগোরি শহরে এই ঘটনা ঘটেছে।

বছর পঞ্চাশের ওই ব্যক্তির বাবা-মা ছাড়া নিজের বলতে আর কেউ নেই। দিনকয়েক ধরেই তাঁর বাবা-মা সর্দি, কাশি, জ্বরে ভুগছিলেন। তাই করোনা আক্রান্ত সন্দেহে তাঁদের ভরতি করা হয় হাসপাতালে। একই বাড়িতে বসবাসের জেরে তাঁর শরীরেও করোনা বাসা বাঁধেনি তো, এই চিন্তাই মাথায় আসে সকলের।

প্রতীকী ছবি

যদিও তাঁর সর্দি, হাঁচি, কাশি, জ্বর এমন কোনও উপসর্গই দেখা যায়নি। তাই বছর পঞ্চাশের ওই ব্যক্তিকে দিনকয়েক হাসপাতালে ভরতি রাখা হয়। তারপর তাঁকে বাড়িতে কোয়েরেন্টাইনে রাখার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা। চিকিৎসকরা বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে বাড়িতেই আলাদা থাকতে। কিন্তু তাতে কান দেননি তিনি। উল্টে এক আত্মীয়কে বলেন, করোনা ছড়াতে চললাম। তারপর ট্যাক্সি ধরে সোজা একটি বারে। খানিকক্ষণ সেখানে থেকে চলে যান অন্য একটি বারে। সেখানে আবার সর্বসমক্ষে ঘোষণা করেন, ‘‌আমার করোনা হয়েছে’‌।

খবর পেয়ে ওই বারে ছুটে যায় পুলিশ কিন্তু ততক্ষণে তিনি ট্যাক্সি ধরে বাড়ি চলে এসেছেন। এরপর সোজা ওই ব্যক্তির বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। অবশেষে সেখান থেকে ওই ব্যক্তিকে পুলিশ আটক করে। আপাতত একটি হাসপাতালে রাখা হয়েছে তাঁকে। এদিকে, ওই পানশালাগুলিকে জীবাণুমুক্ত করার কাজ শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ।