টাকা পুড়িয়ে তৈরি করা হচ্ছে বিদ্যুৎ উৎপাদন চীনে

0
1029

চীনে পুরোনো নোট পুড়িয়ে উৎপাদন করা হচ্ছে বিদ্যুৎ। দেশটির পূর্বাঞ্চলে ইয়ানচেন শহরে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পোড়ানো হচ্ছে ১০০ (ইউয়ান) টাকার পুরনো নোট! ২০১৭ সালে  পোড়ানো হয়েছে ১ হাজার ৮০০ টন ব্যাংক নোট, ১৮০ বিলিয়ন ইউয়ান। যার মূল্য টাকায় ২১ লক্ষ কোটিরও বেশি! তবে এতটা চমকানোর কিছু নেই। কারণ, পুড়িয়ে ফেলা ব্যাংক নোটগুলো অচল। ১০০ ইউয়ানের এ নোটগুলোর পরিবর্তে এখন নতুন ডিজাইনের নোট বাজারে এসেছে। তাই এগুলো এখন আর কাগজের টুকরো ছাড়া কিছু নয়। কাগজের টুকরোকে কাজে লাগিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনের এ অভিনব পদ্ধতিটি বের করেছে বায়োম্যাস পাওয়ার কোম্পানি নামে একটি বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। ৩০ টন নোটের সঙ্গে খড় ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপন্ন করে থাকে তারা।

চীন ১০০ ইউয়ানের জন্য নতুন নোট বাজারে ছাড়ে। আর পুরোনো নোটগুলো ইয়ানচেন শহরে পাঠিয়ে দেয়া হয় যেন সেখান থেকে বিদ্যুৎ উৎপন্ন করা যায়। মূলত ওজনের ওপর নির্ভর করে কতটা বিদ্যুৎ উৎপন্ন করা যাবে। ইনসিনারেটরে পাঠানোর আগে এগুলোকে ছোটো বলের মতো তৈরি করা হয়।

জ্বালানি প্রকৌশলী জু হংয়েই বলেন, ‘প্রত্যেকটি ট্রাক ৩০ টন ওজনের এ কাগজ নিতে পারে। টাকার হিসাবে যা দাঁড়ায় ৩০৭ মিলিয়ন পাউন্ড। এ পরিমাণ কাগজ দিয়ে ৩০ হাজার কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব। শহরটির বাড়িগুলোতে প্রতি মাসে গড়ে ১০০ কিলোওয়াট বিদ্যুৎ ব্যবহৃত হয়। অর্থাৎ একটি ট্রাক দিয়ে একটি বাড়ির ২৫ বছরের বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব।

জ্বালানি খাতে শুধুমাত্র চীন-ই নয়। ব্যাঙ্ক অফ ইংল্যান্ড প্রতিবছর ব্যাঙ্ক নোট গুলির বিলিয়ন পাউন্ড মূল্যের বিলুপ্ত করে ফেলেছে কারণ সেগুলো নষ্ট হয়ে পড়েছে।

প্রতিবছর ব্যাঙ্কের 700 মিলিয়ন টন নোট পাওয়া যায় যা প্রচলন থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

ব্যাংক অফ ইংল্যান্ড এই বছরে প্রায় এক বিলিয়ন নোট ধ্বংস করার ক্ষমতা রয়েছে।

যাই হোক এটি একটা কার্যকরি সিদ্ধান্ত ছিল যেটা পরিবেশগতভাবে বন্ধুত্বপূর্ণ হলো।