বছরে গড়ে প্রায় ৭৫ দিন স্মার্টফোনের দিকে তাকিয়েই কেটে যাচ্ছে ভারতীয়দের, জানালো সমীক্ষা

0
323

স্মার্টফোন ছাড়া একটি দিনও কাটানো আমাদের পক্ষে এখন খুব মুশকিল। গান শোনা, মুভি দেখা, ছবি তোলা, ব্যাঙ্কিং— সব কিছুই এখন স্মার্টফোন থেকে করা সম্ভব। সারা বছরে ৭৫ দিন স্মার্টফোনের দিকে তাকিয়ে থাকছেন ভারতীয়রা। জেগে থাকলে এক-তৃতীয়াংশ সময় স্মার্টফোন ব্যবহার করছেন দেশের মানুষ। গোটা বছরে প্রায় ১৮০০ ঘণ্টা সময় ফোনের দিকে তাকিয়ে কেটে যাচ্ছে। প্রত্যেক চার জন ভারতীয়র মধ্যে তিন জন ভারতীয় এই পরিমাণ স্মার্টফোন ব্যবহার চালিয়ে যাচ্ছেন। এর ফলে শরীর ও মনে প্রভাব পড়ছে।

এই ভাবেই বর্তমানে স্মার্টফোন আমাদের দৈনন্দিন জীবনের ওতপ্রোত অঙ্গ হয়ে উঠেছে। সম্প্রতি এক সমীক্ষার রিপোর্টে জানা গিয়েছে, বছরে প্রায় ১,৮০০ ঘণ্টা সময় স্মার্টফোনের সঙ্গেই নানা কাজে কাটান প্রায় ৭৫ শতাংশ ভারতীয়!

স্মার্টফোন প্রস্তুতকারী সংস্থা Vivo-র সাথে হাত মিলিয়ে সাইবারমিডিয়া রিসার্চের প্রকাশিত তথ্য থেকে জানা গিয়েছে এই সমীক্ষায় অংশ নেওয়া সদস্যদের অর্ধেকের বেশি সোশ্যাল মিডিয়া বন্ধ করতে অস্বীকার করেছেন। অনেকেই স্বীকার করেছেন স্মার্টফোন ছাড়া জীবন ধারণ সম্ভব নয়। এর মধ্যে বেশিরভাগ বন্ধু ও পরিজনদের সাথে ভার্চুয়ালি কথা বলতে স্বচ্ছন্দ।

সাইবাইমিডিয়া রিসার্চের পক্ষ থেকে প্রভু রাম বলেন, “এই সমীক্ষা থেকে সহজেই বোঝা যাচ্ছে, স্মার্টফোনের উপর মানুষের নির্ভরশীলতা আগের থেকে বেড়েছে।” স্মার্টফোনের উপর মানুষের নির্ভরশীলতা এতটাই বেড়ে গিয়েছে যে, মানুষ এখন তাঁর বন্ধু পরিজনের সঙ্গে মেলামেশাও আগের চেয়ে ৩০ শতাংশ কমিয়ে দিয়েছেন।

“ইন্টারনেটে যুগে জন্মানো শিশুরা ডিজিটাল ডিভাইস হাতে বড় হচ্ছে। এর ফলে সমাজের কাঠামো পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে। এর ফলে সম্পর্কের সংজ্ঞা বদলে যাচ্ছে। বদলে যাচ্ছে মানুষের আবেগ প্রকাশের উপায়।” Vivo-র তরফে জানিয়েছেন নিপুণ মার‍্যা। গোটা দেশের আটটি শহরে অনলাইন ও সামনে থেকে এই সমীক্ষা চালানো হয়েছে। এর মধ্যে ৭৫ শতাংশ মানুষ জানিয়েছে ১৯ বছরের আগে তাদের হাতে স্মার্টফোন চলে এসেছিল। এদের মধ্যে ৪১ শতাংশ জানিয়েছে স্কুলে পড়ার সময় থেকেই স্মার্টফোন ব্যবহার করছেন।

সারা দেশের আটটি শহরে অনলাইনে আর মুখোমুখী হয়ে এই সমীক্ষা চালানো হয়েছে। মোট ২,০০০ জনের মধ্যে এই সমীক্ষা চালানো হয়েছে। এদেঁর মধ্যে ৬৪ শতাংশ পুরুষ ও ৩৬ শতাংশ মহিলা। এদেঁর মধ্যে ৭৫ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন, তাঁরা তাঁদের বয়স ১৯ বছর হওয়ার আগেই হাতে স্মার্টফোন পেয়ে গিয়েছিলেন। এঁদের মধ্যে ৪১ শতাংশ জানিয়েছে স্কুলে পড়ার সময় থেকেই স্মার্টফোন ব্যবহার করছেন।