আমি প্রসব যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছি তখন ও অন‍্য বান্ধবীদের সাথে ফোনে গুজগুজ করতে ব‍্যস্ত – জানালেন নাওয়াজের স্ত্রী

0
294

তখন আমি প্রসব যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলাম। এসময় সব স্ত্রীই স্বামীকে পাশে চায়। কিন্তু সে ছিলো না আমার কাছে। সে তখন প্রেমিকার সঙ্গে ফোনালাপে ব্যস্ত’- নিজের স্বামী অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির সম্পর্কে এভাবেই বললেন তার স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকি ওরফে অঞ্জনা আনন্দ কিশোর পাণ্ডে। নওয়াজের সঙ্গে আলিয়ার ডিভোর্স নিয়ে বিতর্ক যেন থামতেই চাইছে না।

প্রতীকী ছবি

একের পর এক বিস্ফোরক মন্তব্য করছেন স্ত্রী আলিয়া। ঘটনার সূত্রপাত মাস তিনেক আগে। যখন নওয়াজের সঙ্গে স্ত্রীর বিচ্ছেদের কথা প্রকাশ্যে আসে। তারপর থেকেই বোমা ফাটিয়ে চলেছেন আলিয়া। এদিকে দাম্পত্য জীবনের তিক্ততা আর পরকীয়ার অভিযোগে নওয়াজ আপাতত রয়েছেন গ্রামে।

তবে দূরত্বে বরফ তো গলেইনি বরং পর্বতপ্রমাণ প্রাচীর তৈরি হয়েছে তাদের দুজনের মধ্যে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে নওয়াজের স্ত্রী আলিয়া জানিয়েছেন, তার স্বামী নারীতে আসক্ত। মহিলাবেষ্টিত হয়ে থাকতে তার ভালো লাগে। তারা যখন একে অপরের সঙ্গে প্রেম করতেন বিয়ের আগে, তখনো নওয়াজ অন্য সম্পর্কে ছিলেন। আর অভিনেতার এসব কুকীর্তির কথা তার ভাই সামাসই ফাঁস করেছিলেন।

প্রতীকী ছবি

‘একথা শুনে কেউ হয়তো ভাববেন যে, তাহলে আমি বিয়েটা কেন করলাম নওয়াজকে? স্বাভাবিক প্রশ্ন আসাটা। ভেবেছিলাম বিয়ের পর ও বদলে যাবে। কিন্তু তা হয়নি। বিয়ের আগেও ওর এই নারীসঙ্গে জন্য যতটা ঝগড়া হত, বিয়ের পর তা আরও দ্বিগুণ হয়ে দাঁড়াল। এমনকী আমাদের প্রথম সন্তান যখন আমার গর্ভে তখনও নওয়াজ নির্বিকার। আমার খেয়াল রাখা তো দূরের কথা, ডাক্তারের কাছে অবধি নিয়ে যেত না’- বলে মন্তব্য করেন আলিয়া সিদ্দিকি।

প্রতীকী ছবি

তিনি আরও বলেন, ‘গর্ভবতী অবস্থায় একা একা গাড়ি ড্রাইভ করে চেক-আপে যেতাম আমি। ডাক্তার বলতেন, আমি পাগল। আমিই নাকি একমাত্র মহিলা যে এরকম শারীরিক অবস্থাতেও একা একা চেক-আপে আসে। এমনকী যেদিন আমি প্রসব যন্ত্রণায় কাতর, নওয়াজ তখনো অন্য মহিলার সঙ্গে ফোনালাপে ব্যস্ত। ওর ভাই সামস আমায় ওর ফেনের বিল এনে দেখাত, যে কত ঘণ্টা কোন মেয়ের সঙ্গে কথা বলেছে ও। এমনকী, সারা বাড়িতে ওকে না দেখতে পেলেই যখন ফোন করতাম। ওর ভাই আমাকে বলত, ছাদে দেখে এসো যাও।