করো’না রো’গীর ফোন চু’রি করে মহা বিপাকে পরলেন চো’র

0
491

করো’না ভাই’রাস ম’হামা’রি আ’তঙ্কে পুরো ভারত। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আ’ক্রান্ত ও মৃ’ত্যুর সংখ্যা। এরই মধ্যে আসামে সরকারি হাসপাতালের আ’ইসো’লেশন ওয়ার্ডে ভর্তি থাকা করো’না রো’গীর মোবাইল ফোন চু’রি করে মহা বিপাকে পড়েছে এক চো’র। পু’লিশ তাকে গ্রে’প্তার করে আ’ইসোলে’শনে পাঠিয়েছে। ২২ বছরের পাপ্পু বর্মন আসামের চিরাং জেলার জেএসবি সিভিল হা’সপা’তালের আ’ইসোলে’শন ওয়ার্ডে ঢুকে পড়ে সোমবার রাত ১টা নাগাদ।

প্রতীকী ছবি

সেখানেই ভর্তি থাকা এক রো’গীর স্মার্টফোনটি চু’রি করে সে। পরে পু’লিশ তাকে গ্রে’প্তার করে হা’সপা’তাল থেকে প্রায় ১৫ কিমি দূরে বেংতালে তার বাড়ি থেকে। বুধবার তাকে ধরে আনা হয় হা’সপা’তালে এবং সেখানেই কো’য়েরে’ন্টিন করা হয়। তার সোয়াব নমুনা পাঠানো হয়েছে পরীক্ষার জন্যে।

প্রতীকী ছবি

হা’সপাতা’লের সুপার মনোজ দাস জানিয়েছেন, আমরা কখনো ভাবিইনি কেউ আ’ইসো’লেশন ওয়ার্ডের ভিতরে যাওয়ার সাহস করবে। আমরা আরো শকড, কারণ যে রো’গীর মোবাইল ফোন চু’রি করা হয়েছে তিনি করো’না পজিটিভ হওয়ার সঙ্গে তার অবস্থাও বেশ সং’কটজ’নক। আমাদের আ’শঙ্কা মোবাইলেও করো’না ভাই’রাস ছিল। যতদিন না পাপ্পুর সোয়াব পরীক্ষার ফল আসছে, ওকে কড়া নজরে রাখা হবে।

প্রতীকী ছবি

ঘটনার এখানেই শেষ নয়, চো’র পাপ্পু যাদের সংস্পর্শে এসেছে তাদের নিয়েও চিন্তায় রয়েছে পু’লিশ। চিরাং-এর পু’লিশ সুপার সুধাকর সিং জানিয়েছেন, ‘আমরা স্বাস্থ্য দপ্তর এবং স্থানীয় প্রশাসনকে গোটা বিষয়টা জানিয়েছি। তারাই বাকি জিনিসের খেয়াল রাখবে। তারই খতিয়ে দেখবে পাপ্পু কার কার সঙ্গে মিশেছে। তাদের চিহ্নিত করে সোয়াব পরীক্ষার জন্যে পাঠানো হবে।

প্রতীকী ছবি

হা’সপা’তাল থেকে সংগ্রহ করা সিসিটিভি ফুটেজের সাহায্য নিয়েই ধরা হয় পাপ্পুকে। জেলা প্রশাসনের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন আগামী তিন-চার দিনের মধ্যেই সোয়াব পরীক্ষার ফল এসে যাবে।

(সূত্র- টাইমস অব ইন্ডিয়া)