নিখোঁজ বউমাকে খুঁজে পেতে, জিভ কে’টে ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করলেন শাশুড়ি

0
126
প্রতীকী ছবি

ভ’য়ঙ্ক’র অ’ন্ধবি’শ্বাসে নিখোঁজ পুত্রবধূকে নি’রাপদে বাড়িতে ফিরিয়ে আনার জন্য নিজের জিভ কে’টে ভগবান শিবের কাছে নিবেদন করলেন ঝাড়খণ্ডের সেরাইকেলা-খারসওয়ান জেলার এক মহিলা। নিজের জিভ কে’টে ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করলেন তাঁর নিখোঁজ বৌমা যেন নি’রাপদে বাড়ি ফিরে আসেন। প্রথমে ওই অবস্থায় হা’সপাতালে যেতেও রাজি হননি। পরে প্রতিবেশীদের চাপে তাঁকে জামশেদপুর হা’সপাতালে ভর্তি করা হয়।

পু’লিশ সূত্রে খবর, মহিলাটি একটি দেশীয় সংস্থায় কর্মরত। তাঁর নাম জানা গিয়েছে লক্ষী নিরালা। বর্তমানে নিরালার শা’রীরিক অবস্থা স্থি’তিশী’ল। তবে কথা বলতে পারছেন না।

প্রতীকী ছবি

জানা গিয়েছে কিছুদিন আগে সন্ধ্যায় তাঁর পুত্রবধূ আচমকাই সন্তান-সহ নিখোঁজ হয়ে যান। তারপর থেকেই ঠাকুরঘরে ঢুকে শিবের কাছে পুত্রবধূর নি’রাপদে প্রত্যাবর্তনের জন্য প্রার্থনা করছিলেন। রাত থেকেই তিনি ও তাঁর ছেলে দুজনেই পুত্রবধূকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেন। বৌমাকে খুঁজে না পেয়ে পরেরদিন সন্ধ্যায় থা’নায় গিয়ে অ’ভিযোগ করেন নন্দলাল ও তাঁর ছেলে।

রবিবারও বৌমা ফিরে না আসায়, ওই দিনই সন্ধ্যায় নিজের জিভ কা’টেন লক্ষী। এ প্রসঙ্গে নিরালার স্বামী নন্দলাল নিরালা বলেন, “কেউ তাঁকে ভগবানের কাছে জিভ কে’টে প্রার্থনার কথা বলেছিলেন। তাই তিনি এটা করেছেন।” তবে এখনও পু’লিশ বা ভগবান শিব, কেউই তাঁদের পুত্রবধূর কোনও সন্ধান দিতে পারেননি। কে-ই বা লক্ষ্মীদেবীকে এই কঠোর পদক্ষেপ নিতে পরামর্শ দিল, তাও জানা যায়নি। সুস্থ থাকলেও তিনি কথা বলার শক্তি হারিয়েছেন।

সূত্র –