কিসের অভাবে করোনা রুখতে সমস্যা হচ্ছে জানালেন চিকিৎসক দেবি শেঠী

0
193

করোনা যুদ্ধে সমালোচনা না করেই সরকারের পাশেই দাঁড়িয়েছেন পূর্ব ভারতের বিশিষ্ট কার্ডিয়াক সার্জন ডা. দেবি শেঠী। সরকারের কাজের ভূয়সী প্রশংসা করে দেবী শেঠী জানিয়েছেন, মনে রাখবেন অসুখটা মাত্র ছ’মাসের পুরনো। প্রথম রাউন্ডে সরকারি হাসপাতাল যথেষ্ট ভালো কাজ করেছে। এবার তো দায়িত্ব নিতে হবে বেসরকারি হাসপাতালকে।

বেডের হাহাকার প্রসঙ্গকে উড়িয়ে দিয়ে ডা. শেঠী বলেন, “বেড চিকিৎসা করে না। চিকিৎসা করতে গেলে দক্ষ চিকিৎসকের প্রয়োজন। অনেক বেড আছে। কিন্তু ৫০ হাজার ডাক্তারের অভাব আছে। সওয়া এক লক্ষ নার্সের অভাব আছে।”

প্রতীকী ছবি

তাঁর পরামর্শ, “যে সমস্ত চিকিৎসকরা পিজিটি ফাইনাল ইয়ারে পড়ছেন তাঁদের এবছর পরীক্ষা দেওয়ার প্রয়োজন নেই। সরকার দ্রুত সিদ্ধান্ত নিক। পরীক্ষা দিয়ে তারা কি শিখবেন? তার চেয়ে এই বছরটা তাঁরা করোনা রোগীদের চিকিৎসায় কাজ করুন। যে সমস্ত নার্সরা বিএসসি ফাইনাল ইয়ার পড়ছেন তাঁরাও কাজে নেমে পড়ুন। পরীক্ষা স্রেফ একটা সার্টিফিকেট দেবে। আসল কাজ শেখাবে এই প্র‍্যাকটিকাল অভিজ্ঞতাই।”

প্রতীকী ছবি

এই মুহূর্তে যত চিকিৎসক নার্সের অভাব রয়েছে এই ভাবেই তা মেটানো সম্ভব বলে মনে করছেন ডা. শেঠী। এক একটা মেডিক্যাল কলেজ তৈরিতে ৪০০ কোটি টাকা খরচ। তাঁর পরামর্শ, নতুন মেডিক্যাল কলেজ তৈরি করা অনেক খরচ সাপেক্ষ। তার চেয়ে যে মেডিক্যাল কলেজগুলি আছে সেখানেই ১০০টা করে আসন বাড়ানো হোক। তাতেই অভাব ঠেকানো যাবে।

প্রতীকী ছবি

প্রতিটি সরকারি মেডিক্যাল কলেজকে একটি করে হাসপাতাল দত্তক নেওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন তিনি। সোমবার ইকো ইন্ডিয়া এবং নওকরি ডট কম যৌথভাবে কোভিড হেলথ কেয়ার প্রফেশনাল লঞ্চ করে। সেখানেই কোভিড হেলথ কেয়ার প্রফেশনালের চেয়ারম্যান অরুন দুগগাল, লাল প্যাথল্যাবের চেয়ারম্যান ডা. অরবিন্দ লাল, ইকো ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান ডা. কুমুদ রাই হাজির ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে এই বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট কার্ডিয়াক সার্জন ডা. দেবি শেঠী।

সংগৃহীত – সংবাদ প্রতিদিন