করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে অতিরিক্ত গোমূ’ত্র পান করে হাসপাতালে ভর্তি অসুস্থ বাবা রামদেব – জানুন সত‍্য

0
318

চীনে প্রথম সংক্রমণ শুরু হয় জানুয়ারিতে, এখন মর’ণঘাতি করোনাভাইরাস প্রকোট আকার ধরা করেছে, ছড়িয়ে বিশ্বে। এখনও ভাইরাস প্রতিকারে কোনও ভ্যাকসিন বা অ্যালোপ্যাথি আবিষ্কার করতে পারেনি বিশেষজ্ঞরা। তবে চীনে যখন করোনা ছড়িয়ে পড়ে তখনই আজগুবি ও ভ্রান্ত্র মতবাদ ছড়ায় ভারতের উগ্র হিন্দুরা। ভারতের রাজনৈতিক দল হিন্দু মহাসভার প্রেসিডেন্ট স্বামী চক্রপানি মহারাজ দাবি করেন করোনা রুখতে একমাত্র ‘মহৌষধি’ হল গোমূ’ত্র। এই দাবিকে হাতিয়ার করেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে নানা ধরনের পোস্ট।

সম্প্রতি এমনই এক ফেসবুক পোস্টে দাবি করা হয়েছে, করোনাভাইরাসের হানা থেকে বাঁচতে আগাম সতর্কতা হিসেবে গোমূ’ত্র পান করেছেন ভারতের প্রখ্যাত যোগগুরু বাবা রামদেব। বেশিমাত্রায় গোমূ’ত্র পান করার কারণে বাবা রামদেব অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে পোস্টে দাবি করা হচ্ছে।

দাবির স্বপক্ষে রামদেবের একটি ছবিও পোস্ট করা হয়েছে। যেখানে দেখা যায়, হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন রামদেব। ছবি দেখে প্রাথমিকভাবে যোগগুরু অসুস্থ বলেই মনে হচ্ছে। তাকে ঘিরে রয়েছেন অনুগামীরাও। ফেসবুকের বেশ কিছু অ্যাকাউন্ট থেকে একই ছবি ও দাবি পোস্ট করা হয়েছে। ভাইরাল হওয়া ছবিটি আসলে ২০১১ সালের। কালো টাকার বিরুদ্ধে টানা অনশন করা রামদেব যেদিন তা প্রত্যাহার করেন, সেদিন হাসপাতালে ওই ছবি নেয়া হয়েছিল। একটানা অনশনে থাকার ফলে দুর্বল হয়ে পড়েছিলেন তিনি। তবে করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে রামদেবের গোমূ’ত্র খাওয়ার দাবিটি সত্য নয় বলে জানিয়েছে ভারতীয় একটি দৈনিক।

ইংরেজিতে Baba Ramdev Weak Hospital লিখে গুগল-সার্চ করলে দেশটির গণমাধ্যমে প্রকাশিত আসল ছবিটির সন্ধান মেলে। ওই খবর অনুযায়ী, দেরাদুনে অনশন ভাঙার পর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল রামদেবকে। ২০১১ সালের ১২ জুন ওই ছবিটি তোলা হয়। এছাড়াও বাবা রামদেবের মুখপাত্র তিজারওয়ালা এসকের গত ৫ মার্চের একটি টুইট সাম্প্রতিক জল্পনায় জল ঢেলেছে। তিনি লিখেছেন, এসবই ভুয়া খবর। লজ্জারও বিষয়। সম্মাননীয় রামদেব সম্পূর্ণ সুস্থ রয়েছেন। বিভিন্ন খবরের চ্যানেলকেও সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তিনি।