এই পৃথিবীতে এমন ১২ জন বাচ্চা রয়েছে যাদের দেখলে চমকে যাবেন

0
2045

ছোটোবেলায় আমরা কিরকম ছিলাম? এখানে ওখানে দৌড়ে ঘুরে বেড়ানো। খেলাধুলা করা, সময় নষ্ট করা, টিভিতে কার্টুন দেখা কিম্বা মা’কে বিরক্ত করা। কিন্তু বলাই বাহুল্য যে, বর্তমান যুগে অনেক পরিবর্তন হয়েছে, এমনকি ছোটো ছোটো বাচ্চারাও তাদের নিত্যদিনের স্বভাবের অনেক পরিবর্তন করেছে। আপনার বিশ্বাস হবে না এইসব শিশুদের দেখে, যে এরা সত্যিই রয়েছে এবং তাদের ছোটো বয়সেই তারা এতকিছু করেছে। যেখানে আমরা ছোটোবেলায় শুধুমাত্র বসে বা খেলাধুলা করে সময় নষ্ট করে কাটিয়ে দিতাম।

আসুন দেখে নেওয়া এরকম অদ্ভুত ১২ জন বাচ্চাদের যাদের দেখলে আপনার বিশ্বাস হবে না যে, তারা সত্যিই এই পৃথিবীতেই রয়েছে। অদ্ভুত কিছু বৈশিষ্ট্যের জন্যই এই সব বাচ্চারা আজ ইন্টারনেটে এত জনপ্রিয়।

১. অ্যান্ডি লি

৩ বছর বয়সের সময় আপনি কিরকম দুষ্টু আর অকাজের ছিলেন মনে আছে? হংকং -এর বাসিন্দা অ্যান্ডি লি নামের এই বাচ্চাটি ৩ বহর বয়স থেকেই পিয়ানো বাজাতে ওস্তাদ। যে বয়সের কথা আমরা বলছি, সেই বয়সের কথা হয়তো অনেকের মনেই থাকে না। রাতে শুতে যাওয়ার আগেও অ্যান্ডি, বিখ্যাত পিয়ানো বাদক মোজার্ট – এর তিনটি টিউন বাজাতে সক্ষম।

২. ক্রিস্টিনা পিমেনোভা

এই সুন্দরী মেয়েটি রাশিয়ার এবং একে বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দরী মেয়ে রুপে আখ্যায়িত করা হয়েছে। আরমানি, বেনেটন ইত্যাদি বিশ্ববিখ্যাত কোম্পানির সাথে তার চুক্তি রয়েছে। ৩ বছর বয়স থেকেই ক্রিস্টিনা মডেলিংয়ের কাজ করছে।

৩. গ্যাবি উইলিয়ামস

এই ছোট্ট মেয়েটি এক দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত, যেই রোগের নাম অবধি জানা যায়নি এবং যার কারণে তার বয়স বাড়ছে না। প্রতি চার বছরে তার বয়স মাত্র এক বছরের মতো বাড়ে। এই রোগ তাকে অন্য শিশুদের থেকে আলাদা করে দিয়েছে, সে অন্ধ এবং বোবা হয়েই তার শৈশব কাটাচ্ছে।

৪. দীপক কুমার পাসওয়ান

আমাদের দেশের এই বাচ্চাটি ৮ অঙ্গের শিশু নামেই বেশি পরিচিত। সে অত্যন্ত দুর্ভাগ্য নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। তার পেটের কাছ থেকে আরেকটি যমজ শিশুকে হাত পা সমেত ঝুলে থাকতে দেখা যায়, যে তার শরীরে পরজীবীর মতোই বাসা বেঁধে রয়েছে।

৫. লোলা চুইল

এই সুন্দরী মেয়েটির বয়স মাত্র ১৬ বছর, ফেসবুকে তার ফলোয়ার্সের সংখ্যা ৩৭ হাজারেরও বেশি। লোলা, Black Hannah Montana নামেই বেশি পরিচিত। ইতিমধ্যেই সে একাধিক বিজ্ঞাপন সংস্থার হয়ে কাজ করে। তার জনপ্রিয়তার অন্যতম কারণ হল, তাকে দেখে মনে হয় সে যেন অন্য কোনো গ্রহ থেকে এসেছে।

৬. এডাম

এডামের সাউথ আফ্রিকার একটি বাচ্চা এবং সে যথেষ্ঠ জনপ্রিয় শুধুমাত্র তার ঘোর কালো রঙের জন্যই নয় এমনকি তার চোখের সম্পূর্ণ অংশটিই কালো।

৭. রিচার্ড সান্দ্রাক

রিচার্ড হল বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী বাচ্চা। মাত্র ৮ বছর বয়সে সে ৬০০ পুশ আপ দিতে পারে, এছাড়াও প্রায় ৯৫ কেজি ওজন নিয়ে বেঞ্চ প্রেসও করতে পারে।

৮. গিউলিয়ানো এবং ক্লডিও স্টোর 

এই দুটি বাচ্চা রোমানিয়ার, দু বছর বয়স থেকে তারা বডি বিল্ডিংয়ের কাজ করছে। তাদের রেকর্ডও রয়েছে একবারে ৯০ টা পুশ আপ করার।

৯. পান জিয়াং

এই শিশুটি চীনের। Ichthyosis নামের এক চামড়ার দুরারোগ্য অসুখে ভুগছে সে। তার সমস্ত শরীরটাই শুকনো এবং চুলকানিময় চামড়াতে আবৃত।

১০. উইন্টার ভিনেচকি

এই মেয়েটি দুনিয়ার সবচেয়ে কম বয়সী মানুষ যে সমস্ত মহাদেশের ম্যারাথনে অংশগ্রহণ করেছে। আর ম্যারাথনে অংশগ্রহণ সে ৭ বছর বয়স থেকে করে আসছে।

১১. লু হাও

হাও -এর ওজন প্রায় ৬০ কেজির মতো, যা তার বয়সী শিশুদের থেকে অন্তত পাঁচগুণ বেশি। ডাক্তাররাও তার এই অধিক ওজনের কোনোও সদুত্তর খুঁজে পাননি।

১২. ফু ওয়েনগুই

সাধারণ মানুষের মেরুদণ্ডে সাধারণত ৭ টি ভার্টিব্রা বা কশেরুকা থাকে, কিন্তু ওয়েনগুই এর সেখানে ১০ টি কশেরুকা রয়েছে। ৬ বছর বয়স থেকেই সে congenital scoliosis রোগে ভুগছে।

Source