১০টি অদ্ভুত জিনিস যেগুলি বিভিন্ন দেশে কামোত্তেজক মনে করা হয়

0
935

বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর অংশ হল এটি অত্যন্ত বৈচিত্রপূর্ণ। কিছু দেশে সামাজিকভাবে অগ্রহণযোগ্য কিছু অদ্ভুত জিনিস অন্য একটি দেশে সেক্সি বলে বিবেচিত হয়। আমাদের অনেকেরেই এইসব ছবিগুলি দেখে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা মনে হতে পারে কিন্তু কারও কাছে এইগুলিই আকর্ষণীয় হতে পারে কারণ সৌন্দর্য সত্যিই দর্শকদের চোখের উপর নির্ভর করে। কিছু কিছু মানুষ সৌন্দর্য্য পেতে গিয়ে কত কাঠ-খড় পোড়াতে হয়, আবার কিছুজন সামাজিক রীতি নিয়ম পালনের জন্য এসব করেন। আসুন দেখে নেওয়া যাক সেই সব অদ্ভুত জিনিস যেগুলি বিভিন্ন দেশে সেক্সি বলে বিবেচিত হয় –

১. বিবর্ণ ত্বক

via

বিবর্ণ বা ফেকাশে ত্বক এশিয়ার বিভিন্ন দেশে সৌন্দর্য্য বলে মনে করা হয়। যে সমস্ত দেশে গরম অত্যন্ত বেশি সেখানে মহিলারা মুখে নানা ধরণের মাস্ক বা কাপড় ব্যবহার করে ত্বক ঢেকে রাখেন।

২. অতিরিক্ত ওজন

via

উত্তর-পশ্চিম আফ্রিকার মরিতানিয়া দেশের মহিলাদের পুরুষের নজরে আসার জন্য পেটের উপর মেদ জমা হওয়া এবং তাতে কয়েকটি কোঁচ আসা বাঞ্ছনীয়। এই দেশে মহিলাদের ফার্মে পাঠানো হয় যাতে তারা একদিনে খাওয়া-দাওয়া করে প্রায়  ১৬০০০ ক্যালরি অবধি শরীরে জমা করতে পারে।

৩. উঁচু কপাল

via

বড় কপাল পাওয়ার জন্য মহিলারা কপালের উপর থাকা অর্ধেকের বেশি চুল তুলে ফেলেন। আফ্রিকায় বসবাসকারী ফুলা গোষ্ঠীর মহিলাদের মধ্যে এই রীতি প্রচলিত আছে।

৪. বাঁকা দাঁত

via

পাশ্চাত্যের দেশগুলিতে বা অন্যান্য দেশে সোজা সরল দাঁতের হাসি স্টাইল স্টেটমেন্ট হলেও, জাপানে কিন্তু ব্যাপারটা সম্পূর্ণ উলটো। সেখানে বাঁকা দাত বা গজ দাঁত সেক্সি বলে মনে করা হয়। দাঁতের গঠন পাল্টানোর জন্য জাপানে ডেন্টিস্টদেরও চাহিদা তুঙ্গে।

৫. দাগ

via

আফ্রিকান দেশ যেমন নিউ গিনি, ওইসব জায়গায় শরীরে বা মুখের উপর কোনো নকল দাগ বানানোকে সেক্সি মনে করা হয়। এই সমস্ত দাগ পুরুষদের ক্ষেত্রে কোনো কিছু স্মরণীয় করে রাখতে ব্যবহার করা হয় আর মহিলাদের ক্ষেত্রে বয়ঃসন্ধি কাল ও বিয়ের চিহ্ন হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

৬. লাল চামড়া এবং প্রসারিত ঠোঁট

via

ইথিওপিয়াতে মুর্সি সম্প্রদায়ের মেয়েরা নানাধরণের গোলাকার চাকতি ব্যবহার করে তাদের ঠোঁটকে প্রসারিত করে। মনে করা হয় যে, ঠোঁট যত বড় হবে তার সামাজিক অবস্থাও তত ভালো হবে। উত্তর-পশ্চিম নামিবিয়ার হিম্বা সম্প্রদায়ের মানুষেরা গায়ে লালমাটি এবং চর্বি মাখে, তাদের চামড়াকে রোদ থেকে সুরক্ষিত রাখার জন্য।

৭. নাক সাজানোর জন্য অস্ত্রপ্রচার

via

নাকের একটি বিকৃত অংশ ঠিক করার জন্য কিছু লোক রাইনোপ্লাস্টি করে। কিন্তু ইরানের মানুষজন নাক সাজানোর জন্য এটি করে।

৮. জোড়া ভ্রূ

via

তাজাকিস্তানের কিছু কিছু অংশে জোড়া ভ্রূ সৌন্দর্য্য এবং কামোত্তেজক বলে মনে করা। এলাকার লোকজন বিশ্বাস করে যে জোড়া ভ্রু ইঙ্গিত দেয় একজন ব্যক্তি জীবনে খুব সৌভাগ্যবান হবে।

৯. লম্বা ঘাড়

via

পৃথিবীর অনেক দেশেরই লোকজন মনে করেন যে লম্বা ঘাড় যৌন আকর্ষণের প্রতীক। ঘাড় যত লম্বা হয় সে তত সেক্সি হয়। পূর্ব বর্মার কিছু অঞ্চলে মেয়ে গলায় পিতলের প্যাঁচালো রিং পড়ে তাদের ঘাড় আরও লম্বা করার জন্য। সেই কারণে ওই অঞ্চলকে “the country of giraffe women” বলা হয়। পুরানো দিনের লোকজন বলেন বাঘের আক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য মেয়েরা এটি পরে কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তা রীতি মানার জন্যই পরা হয়।

১০. হৃদয় আকৃতি মুখ

via

দক্ষিণ কোরিয়ায় হৃদয় আকৃতির মুখ হল নিজেকে সেক্সি দেখানোর চাবিকাঠি। এই অনেক কোরিয়ানরা জটিল অপারেশনট করান এই জন্য। চোয়ালের হাড়কে তিন অংশে ভেঙে ফেলা হয়, তারপর মাঝের অংশকে বের করে নেওয়া হয়, পুনরায় পাশের দুটি হাড়কে জোড়া লাগানো হয়, যাতে চিবুক আরও তীক্ষ্ণ হয়।

সুতরাং এইগুলিই ছিল আজকের অদ্ভুত সৌন্দর্য্য নিয়ে আলোচনা, ভালো লাগলে লাইক, কমেন্ট, শেয়ার করুন।

Source

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here