এমন ১০টা সিনেমা যেখানে ক্যামেরার সামনেই বাস্তবেই সে’ক্স করা হয়েছে

0
773

বাজারে সিনেমার চাহিদা বাড়াতে গেলে তার মধ্যে আবে’দনময়ী দৃশ্য ঢোকাতেই হবে। সে’ক্স না হলেও যৌ’ন উদ্দীপনা মূলক কোনও না কোনও সিন দেখানো হয় বেশিরভাগ ছবিতেই। তবে যতই সে’ক্স দেখানো হোক না কেন, পুরোটাই তৈরি করা হয়ে থাকে। বাস্তবে কেউই প্রকাশ্যে সে’ক্স করেন না। শুধুমাত্র ছবির প্রচার এবং সে’ক্সের অনুভূতি দেওয়ার জন্যই এই সিন ঢোকানো থাকে। তবে এবার দেখে নিন এমন ১০টা সিনেমা যেখানে ক্যামেরার সামনেই বাস্তবেই সে’ক্স করা হয়েছিল।

১. সু’ইট মু’ভি (Sw’eet Mov’ie):

হাস্যরসে পূর্ণ এই ছবির মধ্যে যৌ’নতায় ভরা। মুক্তি পায় ১৯৭৪ সালে। বাস্তব সে’ক্স ছবির মূল আকর্ষণ।

২. থ্রু দ্য লু’কিং গ্লা’স (Thro’ugh The Look’ing Gla’ss):

 

১৯৭৬ সালে মুক্তি পায় ছবিটি। পরিচালক ছিলেন জোন্স মিডিলটোন। একটা আয়নাকে কেন্দ্র করে তৈরি করা হয় এই ছবি।

৩. স্কার’লেট ডি’ভা ( Sca’rlet Di’va):

 

একজন ইতালিয় অভিনেত্রীর আধা-আত্মজীবনী মূলক সিনেমা। পরিচালনা করেন আসিয়া আর্জেন্তো। অভিনেত্রীর জীবনের ওঠাপড়া, সে’ক্স, সম্পর্ক এবং নে’শা করা সব কিছুই তুলে ধরা হয়েছে।

৪. লা’ভ একচু’য়ালি সা’ক্স (Love Actu’ally Suc’ks!):

 

২০১১ সালে মুক্তি পায় এই ছবি। পরিচালনা করেন স্কুড। ছবির মধ্যে ভালবাসার যাবতীয় সমস্যা গুলোকেই তুলে ধরা হয়েছে।

৫. সর্টস’বাস (Sho’rtb’us):

 

আমেরিকান এই ছবি হাস্যরসে ভরা। যেখানে সে’ক্সকেও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। মূতল নিউ ইয়র্ক সিটিকেই উদ্দেশ্য করা হয়েছে ছবির মধ্যে।

৬. পো’লা এক্স (Po’la X):

এই ফরাসি ছবি তৈরি করা হয়েছিল হারমান মেলভিলি নামে একজন ঊপন্যাসিকের উপন্যাস অবলম্বনে।

৭. ইন দা রিয়া’লম অফ সি’নস ( In The Re’alm Of Sen’ses):

 

এটি একটি জাপানি এবং ফরাসি আর্ট ফিল্ম। পরিচালনা করেন নাগিসা ওসিমা। বাস্তব সে’ক্স এবং নৃ’শংশ’তার ছবি ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ছবিতে।

৮. এনা’টোমি অফ হে’ল ( Anat’omy of He’ll):

 

অপর একটি ফরাসি সিনেমা হল অ্যানা’টমি অফ হে’ল। ক্যাথলিন ব্রেইলাট এই ছবির পরিচালনা করেন। একজন একাকী মহিলার যৌ’ন জীবনই হল এই ছবির মূল বিষয়।

৯. লাভ (Love):

 

এটা একটা ফরাসি ছবি। ছবির পরিচালনা করেছিলেন গ্যাসপার নুই। ২০১৫ সালে কান ফিল্ম ফেসটিভ্যালেও দেখানো হয় ছবিটিকে। প্রধানত ভালবাসা ঠিক কি তাই ফুটিয়ে তোলা হয়েছে সিনেমাতে।

১০. না’ইন সঙ্গ’স (9 Son’gs):

 

এটি একটি ব্রিটিশ আর্ট রোম্যান্টিক ড্রামা ছবি। ২০০৪ সালে মুক্তি পায় এই ছবি। ছবির পরিচালনা করেন মাইকেল উইন্টারবটম। সিনেমাতে মোট ৮টা ভিন্ন ব্যান্ডকে গান গাইতে দেওয়া হয়েছিল। তা থেকেই ছবির নামকরণ করা হয়।

সূত্র